নাসিরুদ্দীন হোজ্জার থাপ্পড় ‘কলু মামো’


https://i0.wp.com/www.tate.org.uk/liverpool/exhibitions/nauman/images/double_slap_512.jpg
নাসিরুদ্দীন হোজ্জাকে চেনেন তো সবাই?
আমার মনে হয় সবাই চেনেন😀

আজ শ্রদ্ধেয় আনিসুল হক এর মতো একটা নাসিরুদ্দীন হোজ্জার গল্প বলবো আপনাদের। না চুপটি করে বসার দরকার নেই। খুবই ছোট্ট গল্প, আর আমিও ভালো বলতে পারিনা। যাক এবার গল্পটা বলছি শুনুন, ইয়ে মানে পড়ুন।

নাসিরুদ্দীন হোজ্জা ছিলেন বেশ চালাক চতুর। এমনকি বলা যায় ধূর্তও🙂
সে খুবই হিসেবী। এবং খুবই সতর্ক। বাড়ীতে তার এক চাকর নতুন কাজে যোগ দিয়েছে। তাই তার মনে কেবলই ঘুরপাক খায় বেটাকে ঠিকঠাক মতো তালিম দিয়ে নিতে হবে। তা না হলে কী না কী ক্ষতি করে বসে। মানে ভুল-চুক আরকি।😀
তো একটা গ্লাস দিয়ে নাসিরুদ্দীন তার চাকরকে বললো, “এ্যাই শোন, ওটা কিন্তু কাঁচের। খুব দামী। ভেঙে যায়না যেনো। খুব সাবধান!”
কিন্তু সে এটা বলেও নিজেকে স্থির রাখতে পারছিলেন না। মনে খুঁতখুঁতি কখন ভেঙে ফেলে। এতোকিছু কিন্তু মাত্র কয়েক সেকেন্ডের চিন্তা। হঠাৎ করেই,
“এ্যাই শিগগীর এদিকে, গ্লাসটা দেতো!” (খুব সাবধানে নিজেই এগিয়ে গিয়ে গ্লাসটা হাতে নিয়ে টেবিলে রাখলেন।)। এরপর চাকরকে কষে একটা চড়! :O
বললেন, “কাঁচের গ্লাস কোনোদিন ধরেছিস? খুব সাবধানে ধরতে হয় বুঝলি? দেখিস খুব সাবধান ভাঙেনা যেন” এটা বলে খুব সাবধানে গ্লাসটা চাকরের হাতে দিলেন। চাকরটি কাচুমাচু-অপ্রস্তুত-কিংকর্তব্যবিমূঢ়ের মতো কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি নিজেকে ঠিক করে নিলো। মনিবরা এমন করতেই পারে।

হোজ্জার বন্ধুরা এমন অবাক কাণ্ডে কিছু না বলে পারলো না। বললো, “সে কী হে হোজ্জা! এ কি করলে? গরীব ছেলেটা কাজ করতে এসেছে। কোনো কারণ ছাড়াই ওকে মারলে যে!”
হোজ্জার উত্তর, “আরে ভাই, সেটাই তো সমস্যা। যদি ওটা ভেঙে ফেলে তাই আগেই সতর্ক করে দেয়া। ও যে গরীব ওকে তো জরিমানা করলে আমার ঠকা হবে।”😛😀

গল্পটা ছোট আঙ্গিকে এই ব্লগেই আরেকবার বলেছিলাম। কিন্তু এবার বললাম রূপক হিসেবে। ব্লগ কর্তৃপক্ষ তথা নাসিরুদ্দীন হোজ্জাগণ ব্লগারদের যেকোন সময় থাপ্পড়(ব্যান) দিয়ে বসতে পারেন। কারণ প্রথম আলো অনেক বড় প্রতিষ্ঠান, অনেক বড় বিনিয়োগ, অনেক বড় এর ইউজার বেজ(কমলেও অনেক থাকবে), অনেক বড় এঁদের মানসিকতা(হোজ্জার মতো)। আর ব্লগাররা হচ্ছে তাদের চাকর, যখন তখন থাপ্পড় দেয়া যায় কোনো কারণ দর্শানো ছাড়াই। অপরদিকে, অনেক ব্লগ প্রথম পাতায় কী করে আসে (উদাহরণঃ1, 2 ,3 ,4, 5)তা অনেকের মনেই বিস্ময় ঘটায়। যদিও মি. মাহবুব মোর্শেদ কে মেইল করাতে তিনি জানিয়েছেন ওসব হচ্ছে নতুন ব্লগ হবার কারণে ‘অতোসতো দেখা হয়ে ওঠেনা!’।
বিদ্রঃ আমি আমার কমেন্ট ব্যান প্রত্যাহার চাচ্ছিনা। এবং আমি কোনোভাবেই ক্ষমা চাইবো না। এ পোস্টটির কারণ সবাইকে পরিস্থতি অবহিতকরণ। ক্ষমা যদি চাইতেই হয়, ব্লগ কর্তৃপক্ষ চাইবে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s