পিএইচপি ৫ এবং ৬ এর উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্যগুলো


পিএইচপি৫ এর মূল ফিচার সমূহ:

১. পিইচপি৫ লিমিটেড টাইপ হিন্টিং সমর্থন করে।
২. অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড কনসেপ্ট পুরোপুরিভাবে সমর্থন করে।
৩. এক্সপ্লিসিট কনস্ট্রাক্টর ও ডেস্ট্রক্টর, অবজেক্ট ক্লোনিং করা, ক্লাস অ্যাবস্ট্রাকশন, ভ্যারিয়েবল এর স্কোপ বা পরিধি/ব্যাপ্তী, ইন্টারফেস ইত্যাদি যুক্ত হয়। এছাড়াও পিএইচপি ৫ এ অবজেক্ট ম্যানেজমেন্ট অনেক উন্নত করা হয়েছে।
৪. Try/Catch Exeption Handling: এরর বা ভুল হলে তা কিভাবে মোকাবেলা করবে প্রসিডিউর মূলক প্রোগ্রামে প্রোগ্রামারের নিজস্ব উদ্ভাবিত পদ্ধতিতে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ভুল থেকে যাবার সম্ভাবনা থাকে। সি++, সি# ও জাভা এর মতো উন্নত প্রোগ্রামিং ভাষায় এগুলো এই ট্রাই-ক্যাচ এর জাল ফেলে ব্যতিক্রম/অন্যথা সুন্দরভাবে ম্যানেজ করা যায়।
৫. এক্সএমএল ও ওয়েব সার্ভিসের উন্নত সংস্করণ: libxml2, simpleXML(parsing and manipulating XML) SOAP and Web Services.
৬. SQLite এর নেটিভ সাপোর্ট যা খুবই শক্তিশালী ডাটাবেজ সার্ভার (এতে ফাইল বেজড ডাটাবেজ সংরক্ষণ সুবিধা আছে)।
৭. উন্নত অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড নিয়ন্ত্রণ সুবিধার কারণেই শক্তিশালী পিএইচপি ফ্রেমওয়ার্কগুলো তৈরী করা সম্ভব হয়েছে। যেমন- কেক-পিএইচপি এবং জেন্ড ফ্রেমওয়ার্ক।

পিএইচপি৬ এর মূল ফিচার সমূহ:

এটি মুক্তি পাবার কথা ছিল ২০০৭ এর শেষের দিকে। তবে ২০০৯ এর প্রথম দিকে রিলিজ পাবার সম্ভাবনা বেশি।
১. ইউনিকোড এটিতে নেটিভ সাপোর্ট পাচ্ছে।
২. নিরাপত্তার দিকে জোর দেয়া হয়েছে।
৩. ভাষাভিত্তিক অনেক ফিচার ও কনস্ট্রাক্ট যুক্ত হয়েছে। foreach() কনস্ট্রাক্ট এখন বহুমাত্রিক অ্যারের জন্যও কাজ করবে। ৬৪বিট এর ইন্টিজার টাইপ যুক্ত করা হয়েছে। লেবেলযুক্ত break

এটি আরো প্রকাশিত হয়েছে প্রথম বাংলা ভাষায় বহু সম্মিলিতভাবে লিখিত পিএইচপি অনলাইন বইয়ে
বইটি পাবেন এখানে, তবে এটি এখনও লেখা শেষ হয়নি।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s